রবিবার, ২৬শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, রাত ১২:২০

শিরোনাম :
বরিশালে বেতন চাইতেই শ্রমিকদের উপর গুলি কথা দিচ্ছি আপনাদের সেবায় আমি সর্বদা পাশে থাকবো : চেয়ারম্যান প্রার্থী এসএম জাকির হোসেন উপজেলার উন্নয়নে আপনাদের পাশে আমি সর্বদা রয়েছি -ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী জসিম উদ্দিন মোটরসাইকেল প্রতিকের চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের ওপর হামলা, আহত-২ সদর উপজেলায় চেয়ারম্যান প্রার্থী হওয়া কে এই জাকির হোসেন প্রচার-প্রচারণায় ভোটারদের মন জয় করছেন ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী জসিম যারা আমার জন্য কাজ করেছে আমি তাদের রেখে কখনো পালিয়ে যাইনি-এসএম জাকির হোসেন রেমিটেন্স আহরণে রূপালী ব্যাংকের ২ দিন ব্যাপী ক্যাম্পেইন সম্পন্ন সদর উপজেলা নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী জসিম উদ্দিনের মনোনয়ন বৈধ ঘোষনা বরিশালের দুই উপজেলায় বৈধতা পেলেন ২৫ প্রার্থী
বরগুনায় পুত্রবধুকে ধর্ষণের দায়ে শ্বশুরের যাবজ্জীবন

বরগুনায় পুত্রবধুকে ধর্ষণের দায়ে শ্বশুরের যাবজ্জীবন

dynamic-sidebar

খবর বরিশাল ডেস্ক ॥ পুত্রবধুকে ধর্ষণের দায়ে শ্বশুরকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড ও ২৫ হাজার টাকা অর্থ দণ্ড দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার (৩১ জানুয়ারি) বরগুনার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিশেষ ট্রাইব্যুনালের বিচারক ও জেলা জজ মো. মশিউর রহমান খান এ আদেশ দেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি হলো বরগুনা সদর উপজেলার এম বালিয়াতলী ইউনিয়নের গর্জনবুনিয়া গ্রামের মৃত আদম আলী হাওলাদারের ছেলে মো. সেরাজ হাওলাদার (৫০)। রায় ঘোষণার সময় আসামি ট্রাইব্যুনালে উপস্থিত ছিলেন।

জানা যায়, পুত্রবধু বরগুনা সদর থানায় ২০০৭ সালের ২৪ মে শশুরের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন, ওই বছর ১৯ মে তিনি শ্বশুরের ঘরের দোতলায় রাত ১২টায় ঘুমিয়ে ছিল। তার স্বামী নুরুজ্জামান বাড়িতে ছিল না। এই ফাঁকে শশুর মো. সেরাজ হাওলাদার গোপনে দোতলায় উঠে পুত্রবধুকে মুখ চেপে ধর্ষণ করেন। পুত্রবধু ডাক চিৎকার দিলে শশুর খুনের ভয় দেখান। পরের দিন পুত্রবধু তার চাচী শাশুরী শাহিনা বেগম, স্বামী নুরুল ইসলাম, প্রতিবেশী শাহজাহান, জাহিদুল ইসলামসহ অনেকের কাছে ঘটনা বলেন। বরগুনা থানা বাদীর মামলা রেকর্ড করে তদন্তের জন্য এসআই মো. মোস্তফার ওপর অর্পণ করেন। তদন্তকারী কর্মকর্তা ১৮ জুলাই আসামির বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশীট জমা দেন। ট্রাইব্যুনাল বাদীসহ ৬ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করেন।

রাষ্ট্রপক্ষের এপিপি আশ্রাফুল আলম বলেন, আসামি ভবঘুরে। ২০০৭ সাল থেকে পলাতক ছিল। চার মাস আগে গ্রেফতার হয়।

আসামিপক্ষের আইনজীবী এম. মজিবুল হক কিসলু বলেন, আসামি পলাতক থাকায় সাক্ষীদের জেরা করা যায়নি। যার কারণে এক তরফা হয়েছে। তিনি বলেন, পুত্রবধু শশুরকে সেবা যত্ম ও রান্না করে খাওয়াবে না। এ কারণে অসত্য তথ্য দিয়ে মামলা করেছে। উচ্চ আদালতে আপিল করার অর্থ আসামির নেই।

আমাদের ফেসবুক পাতা

© All rights reserved © 2018 DailykhoborBarisal24.com

Desing & Developed BY EngineerBD.Net